Antorjatik Gadha Dibos Kew Jane na Gadhar Songkha Koto

বিস্তারিতঃ-

আজ বিশ্ব গাধা দিবস। গাধা নিয়ে বাংলাদেশের সমাজে বহু চর্চা থাকলেও দেশের মূল্যবান প্রাণি সম্পদ হিসাবে কেউ জানে না গাধার সংখ্যা কত ? বন ও পরিবেশ মন্ত্রণালয়ের কাছেও গাধা সম্পর্কে কোনো তথ্য নেই। বন বিভাগের খুলনা অঞ্চলের বন সংরক্ষক মিহির কুমার দো গতকাল জানান, বনে কোনো গাধা থাকে না। প্রাণি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের কাছে গাধা সম্পর্কিত কোনো তথ্য পাওয়া যায় নি।

তবে আমাদের সংবাদ দাতারা জানান, রংপুর চিড়িয়া খানায় ৮ টি গাধার সন্ধান পাওয়া গেছে। এ গুলোর অধিকাংশই ছিল রাজশাহী শহীদ এ এইচ এম কামারুজ্জামান কেন্দ্রীয় উদ্যান ও চিড়িয়া খানায়। সেই চিড়িয়া খানার জায়গায় বঙ্গবন্ধু নভোথিয়েটারের নির্মাণ কাজ চলছে। সে কারণে রাজশাহী থেকে বিভিন্ন স্থানে গাধা গুলো সরিয়ে নেওয়া হয়েছে।

এর মধ্যে গোদা গাড়ি উপজেলার কাকনহাটের একটি চিড়িয়াখানায় দুটি গাধা নেওয়া হয়েছে। নীলফামারীর সৈয়দপুরে পাঠানো হয়েছে দুটি। ঢাকার বাংলাদেশ জাতীয় চিড়িয়া খানায় রয়েছে চারটি গাধা। গাজীপুর বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্কে ছয়টি গাধা রয়েছে। এ ছাড়া বিচ্ছিন্নভাবে দেশের কোনো কোনো স্থানে ব্যক্তিগত পর্যায়ে গাধা থাকতে পারে, যার হিসাব কারও কাছে নেই।

Antorjatik Gadha Dibos Kew Jane na Gadhar Songkha Koto

মানুষের প্রয়োজনে কঠোর পরিশ্রম করা গাধা নিয়ে বাংলাদেশে কোনো সচেতনতা নেই। কিন্তু এই নিরীহ প্রাণীটিকে ভালোবাসা ও সম্মান জানানোর দিন ছিল আজ, ৮ মে বিশ্ব গাধা দিবস। মরুভূমির প্রাণী নিয়ে কাজ করা বিজ্ঞানী আর্ক রাজিকের প্রচেষ্টায় ২০১৮ সালে প্রথম বিশ্ব গাধা দিবস পালন করা হয়। তখন থেকে প্রতি বছর ৮ মে গাধা দিবস পালিত হচ্ছে।

দিবসটি পালনের উদ্দেশ্য হলো:- গাধাকে নিয়ে তথ্য ছড়িয়ে দেওয়া এবং তারা কীভাবে মানুষের জীবনে প্রভাব ফেলছে তা তুলে ধরা। তিনি বুঝতে পেরেছিলেন গাধারা মানুষের জন্য যে পরিমাণ কাজ করে, সেই পরিমাণ স্বীকৃতি পাচ্ছে না। এ জন্য তিনি একটি ফেসবুক গ্রুপ তৈরি করেন। তারপর সেখানে গাধা বিষয়ক বিভিন্ন তথ্য প্রচার করতে শুরু করেন। জানা যায়, গাধা কয়েক শতাব্দী ধরে মানুষের জন্য কাজ করছে।

মানুষের প্রয়োজনে ধারাবাহিকভাবে সারা বিশ্বে ছড়িয়ে পড়েছে প্রাণীটি। তারা দীর্ঘপথ ভ্রমণ করতে পারে। শক্তিশালী এই প্রাণী কঠোর পরিস্থিতিতেও নিজেকে মানিয়ে নিতে পারে। গাধা কখনো কাজ থেকে পিছপা হয় না। তারা মাইলের পর মাইল কার্গো টানতে সক্ষম। আর সেখান থেকে গাধা টানার গাড়িগুলোর ধারণা আসে। তারা অন্যান্য প্রাণীর তুলনায় বেশি সময় পরিশ্রম করতে পারে। তাদের চলার গতি ঘণ্টায় ৩১ মাইল পর্যন্ত হতে পারে। গাধার গড় আয়ু ৫০ থেকে ৫৪ বছরের মধ্যে হয়।

ভালো লাগলে কিন্তু ফেসবুক পেজ এ লাইক দিতে ভুলে জাবেন না।
আরো তথ্য পেতে ভিজিট করুন.